fbpx

ঢাকার উবারে পাহাড়সম অভিযোগ, নেই নিষ্পত্তি

২০১৬ সালের নভেম্বরে যখন বিশ্বের ৩৩তম শহর হিসেবে ঢাকায় উবার যাত্রী সেবা দেয়া শুরু করে তখন ঢাকাবাসী গণপরিবহণের অব্যবস্থাপনায় নাকাল। হলুদ ও কালো ট্যাক্সির উদ্যোগ অকৃতকার্য হয়েছে তাও এক দশক। সিএনজি চালকদের স্বেচ্ছাচারিতায় যাত্রীরা বিপর্যস্ত। ঠিক তখন উবারের উদ্যোগ যাত্রীদের জন্য ছিল আশীর্বাদ। জনপ্রিয় হয়ে উঠতে সময় লাগেনি। কিন্তু সেবাকে গুরুত্বহীন করে তুলতেও ঢাকায় উবার খুব একটা সময় নেয়নি। ফলে অভিযোগ আসতে থাকে নানাভাবে। উবার চালকদের বিরুদ্ধে, তাদের দৌরাত্মের কাহিনীতে ভরে উঠতে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পাতা। উবার কর্তৃপক্ষের কাছে এইসব অভিযোগ যাচ্ছেই কম। আর যা যাচ্ছে তারও নিষ্পত্তি হচ্ছে না যথাযথভাবে। উপরন্তু উবারের নিত্য নতুন আইনে বিভ্রান্ত চালক-যাত্রী উভয় পক্ষই।

উবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ যত

গত ৪ মে রাতে ভাস্কর ও মুক্তিযোদ্ধা ফেরদৌসি প্রিয়ভাষিণীর কন্যা ফুলেশ্বরী প্রিয়নন্দিনী ধানমণ্ডি থেকে গুলশান যাওয়ার জন্য উবারের একটি গাড়িতে ওঠেন। কিন্তু গাড়ির চালক মাঝপথেই তাদের নেমে যেতে বাধ্য করেন।

প্রিয়নন্দিনী সারাবাংলাকে বলেন, উনি (ড্রাইভার) গাড়িতে উঠার পরেই আমাদের জিজ্ঞেস করেন আমরা কোথায় যাবো, সে মতো উনি যাচ্ছিলেনও ঠিকঠাক। হঠাৎ গুলশানে এসে তিনি মত বদলান এবং আমাদের নামিয়ে দেন। ভাড়া মিটিয়ে যখন আমরা তার ব্যবহারের প্রতিবাদ জানাই তিনি আমাদের গালাগালি দিয়ে চলে যান।

অত রাতে এভাবে পথের মধ্যে নেমে যাওয়ায় কেবল যে ভোগান্তি হয়েছে তা নয়, আমরা ভীষণ অনিরাপদও বোধ করি। তাহলে চড়া ভাড়ায়ও কি প্রসিদ্ধ প্রতিষ্ঠান থেকে আমরা উন্নত যাত্রীসেবা পাবো না? প্রশ্ন প্রিয়নন্দিনীর। এটি কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। কারণ উবারের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আছে আরও অনেকের।

চালকদের দুর্ব্যবহার, নিয়ম বহির্ভূতভাবে এবং যাত্রী অনুমতির তোয়াক্কা না করে অন্য কাউকে গাড়িতে তোলা, অস্বাভাবিক রুটের ব্যবহার, অনুন্নত গাড়ির মান, হঠাৎ নষ্ট হয়ে যাওয়াসহ ডজন খানেক অভিযোগ উবারের বিরুদ্ধে ঘুরেফিরে আসছেই। এছাড়া রয়েছে নারী যাত্রীর প্রতি দুর্ব্যবহার, এমনকি বখাটেপণা করারও অভিযোগ।

শাহরিয়ার আহমেদ নামে একজন উবার ব্যবহারকারী ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা যায়- এক যাত্রায় একজন উবার চালক তাদের অনুমতি ছাড়াই একজনকে ফোন করে ডেকে নিয়ে পথ থেকে গাড়িতে তুলে নেন।

একটি সাধারণ অভিযোগ শোনা যায় অনেক উবার ব্যবহারকারীর কাছ থেকেই। তারা জানাচ্ছেন- সফটওয়্যারভিত্তিক এই পরিবহণ ব্যবস্থায় ড্রাইভার কল করার পরে, স্রেফ গন্তব্য জেনে অনেক চালক শেষ মূহূর্তে তা বাতিল করে দেয়। জরুরি কাজে কোথাও যেতে উবার চালকের এমন অযাচিত ট্রাপে পড়ে কাজের ক্ষতির মুখে পড়ছেন অনেকেই।

সম্প্রতি উবার কর্তৃপক্ষ এমন হঠাৎ যাত্রা বাতিলের উপর একটি বিধি আরোপ করেছে। কেউ যদি যাত্রা নিশ্চিত করার ৫ মিনিট পরে যাত্রা বাতিল করে তবে যাত্রীকে পরবর্তী যাত্রায় অতিরিক্ত ৪০ টাকা জরিমানা দিতে হয়। কিন্তু চালক যদি বাতিল করে তার জন্য কোনও বিধি নেই। ফলে চালকরা এর যথেচ্ছা ব্যবহার করছে, আর থেকে যাচ্ছে ধরা-ছোঁয়ার বাইরে।

উবার ব্যবহারকারীদের মতে, এ নিয়মটিও অন্যায়। অনেক সময় চালকরা কল বাতিল করে, ফোন করলে বাজে ব্যবহার করে। এমন নাজুক সময়ে যাত্রীরা সময় নষ্ট না করে পরবর্তী বাহন খোঁজার চেষ্টা করেন।

উবার কী বলে?

যাত্রীদের অভিযোগগুলো নিয়ে সারাবাংলা যোগাযোগ করে উবারের গণযোগাযোগ সংস্থা বেঞ্চমার্ক পিআর এর প্রধান পরামর্শদাতা আশরাফ কায়সারের সঙ্গে। তিনি জানান বাংলাদেশে উবারের কোনো প্রতিনিধি নেই যিনি সারাবাংলাকে জবাব দিতে পারে। আশরাফ কায়সারের পরামর্শে সারাবাংলা ইমেইলের মাধ্যমে সরাসরি উবার কর্তৃপক্ষের কাছে এইসব অভিযোগের বিষয়ে তাদের মতামত ও অবস্থান জানতে চায়।

সারাবাংলা থেকে উবারের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, কোনো যাত্রী যদি অভিযোগ করে তাহলে তা সমাধানের প্রক্রিয়া কী?

উবার তাদের ইমেইল বার্তায় অ্যাপ ব্যবহার করে কী উপায় অভিযোগ করতে হয় তার একটি সচিত্র বর্ণনা দেয় তবে অভিযোগ কার কাছে যায়, কী ধরনের অপরাধের জন্য কিরকম শাস্তি, কতদিনের মধ্যে সমস্যা সমাধান করা হয় এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। তবে উবার বারবার আশ্বস্ত করে তারা যাত্রীদের সমস্যা সমাধান করে এবং করবে।

সারাবাংলা আরও জানতে চায়, পথিমধ্যে বিপদে পড়লে যাত্রী কোনো রকম সাহায্য পাবে কি-না। এই প্রশ্নটি এড়িয়ে যায় উবার।

উবারকে প্রশ্ন করা হয়, যদি চালকের তৈরি করা সমস্যার জন্য যাত্রা বাতিল করতে যাত্রী বাধ্য হয় তখন ৪০ টাকা জরিমানাটা কীভাবে যৌক্তিক হয়। এর জবাবে উবার বলে, যাত্রী যদি মনে করেন তিনি চালকের কারণে বাধ্য হয়েছেন যাত্রা বাতিল করতে, তাহলে তারা যেন তাৎক্ষণিক অভিযোগ জানান। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উবার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

যাত্রীরা উবারের অভিযোগ নিষ্পত্তি প্রক্রিয়ায় কতটা সন্তুষ্ট?

প্রিয়নন্দিনী জানান, ঘটনার পরপরই উবারের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। চালক টাকা নেয়ার পরেও তা নিশ্চিত করেনি। পরে উবারকে একাধিক বার জানালে টাকা নেয়ার বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়। ঘটনার প্রায় ৮ দিন পরে উবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় তারা বিষয়টি আমলে নিয়েছে তবে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা জানানো হয়নি।

উবার ব্যবহারকারীরা প্রায় সকলেই জানান, অভিযোগ নিষ্পত্তির কোনো ঘটনার কথা এ পর্যন্ত তারা জানতে পারেননি। সারাবাংলার পক্ষ থেকে বাংলাদেশে কোনো অভিযোগ নিষ্পত্তির উদাহরণ রয়েছে কি-না? সে প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যায় উবার।

নীতিনির্ধারকরা কীভাবে দেখছেন বিষয়টি?

রাইড শেয়ারিং ট্যাক্সি সেবা চালু হওয়ার প্রায় এক বছর পরে বাংলাদেশ সরকারের সড়ক পরিবহন (বিআরটিএ) কর্তৃপক্ষ এই ধরনের সেবার জন্য একটি নীতিমালা তৈরি করে।

এই নীতিমালায় বলা আছে, কোনো রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানকে বিআরটিএ’র তালিকাভুক্তির সনদ নিতে হবে। তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর অনিয়ম থাকলে যাত্রীরা তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবেন। আর সেই অভিযোগ নিষ্পত্তির পরে প্রতিষ্ঠান যাত্রীদের তা জানাবে।

বিআরটিএ সচিব মুহাম্মদ শওকত আলী সারাবাংলাকে বলেন, কোনো প্রতিষ্ঠান যদি অভিযোগ নিষ্পত্তি না করে তবে যাত্রীরা বিআরটিএকে অভিযোগ জানাতে পারে। সেক্ষেত্রে অভিযোগ বিবেচনা করে বিআরটিএ প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

নীতিমালায় আরও বলা আছে, যদি যাত্রীরা যাত্রাপথে বিপদের আভাস পান তাহলে সরাসরি ৯৯৯ এ যোগাযোগ করলে তাদের অবস্থান পুলিশ কন্ট্রলরুম জানতে পারবে।

শওকত আলী বলেন, এই ধরনের প্রযুক্তি নিয়ে যারা বাজারে আসতে পারবে না তারা সনদ পাবেন না। সহজ হিসাব।

বিআরটিএ সচিব আরও বলেন, আমরা একটি জরিপ চালিয়ে দেখেছি এ ধরনের রাইড শেয়ারিং সার্ভিস খুব জনপ্রিয়। যেহেতু সাধারণের মধ্যে এটার চাহিদা আছে তাই আমরা একটি নীতিমালা তৈরি করেছি। তার আলোকে সনদ দেয়ার জন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রস্তাব যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে নিজেদের একটি অ্যাপও তৈরি করছেন, যা শিগগিরই ব্যবহার করা শুরু হবে বলেও জানান তিনি।

এসব ব্যবস্থা যখন কাজ করা শুরু করবে তখন প্রতিষ্ঠানগুলো কোনো অভিযোগই এড়িয়ে যেতে পারবে না, আশা বিআরটিএ সচিব মুহাম্মদ শওকত আলীর।

নিয়ে নিন নিজেই নিজের UK এর হোস্টিং সার্ভিস এই লিংক থেকে এবং এখনই বানিয়ে ফেলুন আপনার কাঙ্ক্ষিত ওয়েব সাইট।

VPS Business Hosting Starting at $29.95
Includes 24/7 premium technical support, cPanel/WHM, SSH access. Enter CODE: ‘GREEN’ for 5% OFF

প্রয়োজন এ যোগাযোগ করুন ০১৮২৫৭৮৩৩১০ নম্বর এ

 

Buy Your Own Hosting

Leave a Reply